ফেসবুকে সাবেক প্রেমিকার ছবি, ভাগনের ছুরিকাঘাতে মামা খুন

../news_img/61362 mri.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: কক্সবাজারের চকরিয়ায় ফেসবুকে সাবেক প্রেমিকার ছবি আপলোড দেয়াকে কেন্দ্র করে ভাগনে জকির আলমের ছুরিকাঘাতে খুন হলেন মামা নুরুল আবছার (৪৫)।

বুধবার দুপুরে ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডস্থ ভাঙ্গারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নুরুল আবছার ওই এলাকার আব্বাস আহমদের ছেলে।

ঘটনার পরপর জকির আলম পালিয়ে যায়। পরে জকির আলমকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করায় তার স্ত্রী হোসনে আরা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, বুধবার সকাল ১০টার দিকে ঈদ উপলক্ষে জকির আলম ও স্ত্রী গ্রামের বাড়িতে আসেন। দুপুরে জকির বাড়ি থেকে বের হলে পুরনো প্রেমিকের ফেসবুকে দেয়া ছবির রেশ ধরে মামা নুরুল আবছারের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন।পরে হাতাহাতি হলে ভাগনে জকির কোমর থেকে ছুরি বের করে মামাকে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই নুরুল আবছার মারা যান।

এ ঘটনার পরপরই স্থানীয় লোকজন জকিরকে ধরতে ধাওয়া দিলে জকির শ্বশুরবাড়িতে লুকিয়ে পড়ে। সেখান থেকে স্ত্রী ও শাশুড়ির সহায়তায় বোরকা পরে ছদ্মবেশে পালিয়ে যায় জকির। হত্যার অভিযোগে জকিরকে পালাতে সহায়তা করায় স্ত্রী হোসনে আরাকে আটক করা হয়। এ সময় শাশুড়িও পালিয়ে যায়।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে চকরিয়ার থানার ওসি মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পাঁচ বছর আগে মায়ের চাচাতো ভাই নুরুল আবছারের মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল জকির আলমের। এ সম্পর্কের মধ্যেই প্রথমে জকির অন্যত্র বিয়ে করে সংসার করছিল। পরে প্রেমিকা মামাতো বোনের বিয়ে হলে পুরনো প্রেমের ছবি ফেসবুকে আপলোড করে জকির।

তিনি বলেন, ওই ছবি প্রচারের পর দুই পরিবারের মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়। স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠক ডাকা হলে জকির পালিয়ে যায় চট্টগ্রামে। সেখানে তিনি দর্জির কাজ ও তার স্ত্রী একটি গার্মেন্টে চাকরি করেন। ঈদের ছুটিতে জাকির বাড়িতে আসার পর এ ঘটনা ঘটে।

লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে ওসি জানান।