1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৪৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ভাটারায় কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় আর্ট কলেজছাত্রীর মৃত্যু ভিপি নূরের ওপর হামলা ও মামলা প্রত্যাহার দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভ যৌন হেনস্তা: মুখ খুললেন অনুরাগের প্রথম স্ত্রী স্ত্রীকে খুশি করতে জমি বিক্রি করে হাতি কিনে দিলেন স্বামী বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ল শিশু, প্রাণ গেল দুজনেরই দুই দিনের মধ্যে টিকার ট্রায়াল প্রক্রিয়া জানাবে চীনা কোম্পানি চীনকে পাল্টা জবাবের হুশিয়ারি তাইওয়ানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে যা জানালেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব ভারতে সন্তান ছেলে না মেয়ে জানতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর পেট কাটলেন স্বামী! কানের ময়লা পরিষ্কার করার বিজ্ঞানসম্মত উপায়

জয় থেকে ৯৮ রান দূরে বাংলাদেশ

Bangladeshi cricketer Mushfiqur Rahim plays a shot during the final Twenty20 international cricket match between Bangladesh and India of the Nidahas Trophy tri-nation Twenty20 tournament at the R. Premadasa stadium in Colombo on March 18, 2018. / AFP PHOTO / Ishara S. KODIKARA (Photo credit should read ISHARA S. KODIKARA/AFP/Getty Images)

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: সিরিজে জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ২৭২ রান। সেই টার্গেটে ব্যাট করছে সফরকারীরা। শেষ খবর পর্যন্ত ৩৭ ওভার শেষে ৩ উইকেটে ১৭৪ রান করেছে তারা। জয় পেতে এখনো করতে হবে ৯৮ রান। হাতে আছে ৭৮ বল ও ৭ উইকেট। মুশফিক ১৫ ও মাহমুদুল্লাহ ১৮ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

জবাবে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের শুরুটা হয় বেশ ভালো। ওপেনিং জুটিতে আসে ৩২ রান। ২৩ রান করে ফেরেন এনামুল হক। আবারো সাকিবকে নিয়ে দারুণ জুটি গড়ে তোলেন তামিম। ফলে এগোতে থাকে সফরকারীরা। তবে হঠাৎই ছন্দপতন। ২৫ ওভারে বিশুর স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হয়ে ফেরেন তামিম (৫৪)। ফেরার আগে দ্বিতীয় উইকেটে সাকিবের সঙ্গে ৯৭ রানের জুটি গড়েন ড্যাশিং ওপেনার।

সঙ্গী হারিয়ে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি সাকিবও (৫৬)। কিছুক্ষণ পরই নার্সকে অযাচিত শট খেলতে গিয়ে ফেরেন তিনি।

গায়ানার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে এদিনও টস জেতেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে ব্যাটিং নয়, নেন বোলিং। বোলিংয়ে বাংলাদেশের শুরুটাও হয় দুর্দান্ত। লুইসকে (১২) এলবিডব্লিউ করে শুভসূচনা এনে দেন মাশরাফি। ধুঁকতে থাকা গেইলকেও (৩৮) দ্রুত ফিরিয়ে দেন মিরাজ। ৫৫ রানে দুই বিধ্বংসী ওপেনারকে ফিরিয়ে উচ্ছ্বাসে মাতে টাইগাররা। সেটি আরো বাড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০২ রানে ৪ উইকেট হারালে।

কোণঠাসা ক্যারিবীয়দের প্রতিরোধ গড়ে ওঠে হেটমায়ার-পাওয়েলের পঞ্চম উইকেট জুটিতে। দুজনের দারুণ বোঝাপড়ায় ১১০ বলে গড়ে ওঠে ১০৩ রানের জুটি। এই জুটিটাই স্বাগতিকদের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। পাওয়েল ৪৪ রানে আউট ফিরলেও একপ্রান্ত আগলে থেকে যান ‘লোকাল হিরো’ হেটমায়ার। দ্রুতগতিতে রান তুলে এগিয়ে যান সেঞ্চুরির পথে। শেষ পর্যন্ত তিন অঙ্কের ম্যাজিক্যাল ফিগার স্পর্শ করেই ছাড়েন তিনি। খেলেন ৯৩ বলে ৭ ছক্কা এবং ৩ চারের ১২৫ রানের মহাকাব্যিক ইনিংস। এ নিয়ে ঘরের মাঠে সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি হাঁকানোর কীর্তি গড়েছেন হেটমায়ার।

অবশ্য হেটমায়ারের সেঞ্চুরিতে অবদান আছে সাকিবেরও। ৪৩ ওভারে রুবেলের বলে তার সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেন তিনি। তখন এ ক্যারিবীয় ব্যাটারের রান ছিল ৭৯। শেষ পর্যন্ত ৪৯.৩ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে ২৭১ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশের হয়ে ৩ উইকেট নেন রুবেল। দুটি করে উইকেট ভাগাভাগি করেন সাকিব-মোস্তাফিজ।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com