1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৪৪ অপরাহ্ন

বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস ২০১৮’ উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

মৃদুভাষণ রির্পোট:: ‘বিশ্ব হেপাটাইটিসদিবস ২০১৮’উদযাপনউপলক্ষ্যে ফোরাম ফর দি স্টাডিঅব দি লিভারবাংলাদেশ-এরআয়োজনেঅদ্য ২৯ জুলাই, ২০১৮ (রবিবার) বিকাল ০৩:৩০ ঘটিকার সময় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে এক বর্নাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালি শেষে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জ-৩ -এ এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত র‌্যালি ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান।

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রোকেয়া সুলতানা, সম্প্রি তীবাংলাদেশের আহ্বায়ক, পিযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়, বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল প্র্যাক্টিশনারস এসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপকডাঃ মনিরুজ্জামান ভুইয়া এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভাইরাল হেপাটাইটিস ও ডায়রিয়া কন্ট্রোল প্রোগ্রামের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার, ডাঃ শ, ম গোলাম কায়ছার।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু শেখমুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের হার্ট ফেইলিওর ও রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের প্রধানএবং ফোরাম ফর দি স্টাডিঅব দি লিভারের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডাঃ হারিসুল হক।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বঙ্গবন্ধু শেখমুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডাঃমামুন-আল-মাহতাব (স্বপ্নীল)। তিনি তার বক্তব্যে বলেনবিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্বীকৃত ৭টি দিবসের অন্যতম বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস। ২৮ জুলাই অধ্যাপক ব্রয়েলশব্লুমবার্গ নামক একজন প্রয়াত মার্কিন নোবেললরেটের জন্মদিন। তিনিই হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের আবিষ্কারক। অষ্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের রক্তে তিনি ভাইরাসটি আবিষ্কার করেন পরবর্তীতে আবিষ্কার করেন হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের ভ্যাকসিনও। মূলতঃ এই দ্বিতীয় আবিষ্কারটির জন্য ব্লুম বার্গ ১৯৭৬ সালে নোবেলপুরষ্কার পান।

সারাবিশ্বে প্রতি বছর প্রায় ১৩.৪ লক্ষ মানুষ মারা যায়। সারাবিশ্বে প্রায় ৩২.৫ কোটি লোক হেপাটাইটিস এ আক্রান্ত, যার মধ্যে প্রায়ত্রিশ কোটি মানুষতার রোগ সম্পর্কে অবগত নন। আমাদের দেশে প্রায় এক কোটি লোক হেপাটাইটিস এ আক্রান্ত। আমাদের দেশে যত লোক আক্রান্ত হয়ে মারা যায় তার মধ্যে লিভারক্যান্সারের স্থান তৃতীয়। অধিকাংশ লিভার ক্যান্সার এর জন্য দায়ী হেপাটাইটিস‘বি’ ও ‘সি’। এই দু’টি ভাইরাসকে নির্মুল করা না গেলে ২০৪১-এ উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন আমরা দেখছি, কেন যেন মনে হয় লক্ষ লক্ষ লিভার রোগীর সেই বাংলাদেশে সত্যিকার ভাবে স্বপ্নের বাংলাদেশ হয়ে উঠতে পারবে না। আর তাই বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস পালন আর হেপাটাইটিস বি ও সি নির্মুলে বাংলাদেশে সরকারী-বেসরকারী সকল পর্যায়ে সম্মিলিত, বলিষ্ঠ পদক্ষেপ গ্রহণের তাগিদটা বোধকরি অন্য অনেক দেশের তুলনাতেই অনেক বেশী।

তিনি আর ওবলেন হেপাটাইটিস বি’র নতুনওষুধ ন্যাসভ্যাক’র রেসিপিএর ইমধ্যে এদেশের লিভার বিশেষজ্ঞদের উদ্ভাবিত প্রথম ওষুধহিসাবে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদন লাভ করেছে। আমাদের অঞ্চলের কোন দেশে নিজস্ব উদ্ভাবিত ওষুধ অনুমোদনের ঘটনাএটাই প্রথম। ওষুধটিএরইমধ্যে কিউবা, নিকারাগুয়া, ইকুয়েডর, এঙ্গোলা ও বেলারুশে রেজিষ্ট্রেশন পেয়েছে। জাতিসংঘের সাউথ-সাউথ অফিস এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উদ্যোগে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষেদের সর্বশেষ অধিবেশনে প্রকাশিত একটি বইয়ে ন্যাসভ্যা কবাংলাদেশে জনকল্যাণেসাউথ-সাউথ কো-অপারেশনেরমাধ্যমে বাস্তবায়িত জনহিতকর কর্মসূচী গুলোরমধ্যে অন্যতম হিসাবে সন্নিবেশিত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধানঅতিথি জাতীয়অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানতার বক্তব্যে বলেন হেপাটাইটিস বি একটিরাজ রোগ। এই রোগের চিকিৎসা অনেক ব্যয় বহুল হওয়ায় আমাদের দেশে এই রোগেআক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা ব্যয় মেটানে অনেক কষ্টসাধ্য। তিনিবলেন এই রোগ প্রতিরোধে জনসচেতনতাবৃদ্ধি করা প্রয়োজন। তিনি ফোরাম ফর দি স্টাডিঅব দি লিভারকে এই ধরণের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানানএবং সকলকে এক যোগে এই রোগ নিরাময়ে ভুমিকা পালনকরা রউপর গুরুত্ব আরোপকরেন।

বিশেষ অতিথি ডাঃ রোকেয়া সুলতানাবিশ্ব হেপাটাইটি দিবসউপলক্ষে এই আয়োজনের জন্য সংগঠনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক স্বপ্নীলকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেনবাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যখাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে স্বাস্থ্য সেবাজ নগণের দোড়গোড়ায় পৌছে দিয়েছেন।

পিযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়তার বক্তব্যে বলেন যেহেতু এই রোগটিএকটি প্রানঘাতি রোগ অতএব আমাদের সকলের উচিত একসাথে এগিয়ে এসে জনসচেতনা তৈরী করা। তাহলে ই আমরা এই রোগ নিরাময়ে বাংলাদেশের লিভার বিশেষজ্ঞদের যে পরিশ্রম করে চলেছেনতা সার্থক করতেপারব।

অধ্যাপকডাঃ মনিরুজ্জামান ভুইয়া বলেন বাংলাদেশে এখন স্বাস্থ্য খাত অনেক এগিয়ে গেছে। অন্যান্য বিষয়ের মত লিভার রোগের চিকিৎসায় ও দেশের চিকিৎসকরা নতুন নতুন উদ্বাবনী চিকিৎসার মাধ্যমে এই রোগ নিরাময়ে চেষ্টা করে চলেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরেরভাইরাল হেপাটাইটিস ও ডায়রিয়া কন্ট্রোল প্রোগ্রামের ডেপুটি প্রোগ্রামম্যানেজার, ডাঃ শ. ম. গোলাম কায়ছার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভাইরাল হেপাটাইটিস নির্মুলে গ্রহণকরা বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখকরেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ হারিসুল হক তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন বাংলাদেশ যে অসাধ্য সাধন করতে পারেতার প্রমাণ হল অধ্যাপক স্বপ্নীল। ন্যাসভ্যাকের আবিষ্কারের জন্য তিনি অধ্যাপক স্বপ্নীলকে অভিনন্দন জানান।

অনুষ্ঠানে বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উপলক্ষ্যে তথ্য বহুল প্রাচীনতম স্বাস্থ্য সাময়িকী আপনার স্বাস্থ্য বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উপলক্ষ্যে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে। অনুষ্ঠানে এর মোড়ক উস্মোচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে হেপাটাইটিস নিয়েজন সচেতনা মুলক বাউল সংগীত পরিবেশন করেন নয়ন বাউল ও তার দল।

এছাড়া ও অনুষ্ঠানে আয়োজক সংস্থার সদস্য, লিভার বিশেষজ্ঞ, সাংবাদিকসহ দেশের গন্যমাণ্য লোকজন উপস্থিত ছিলেন।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com