1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৩:৫০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
‘ভাইরাসের ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বিশ্বের জন্য উদ্বেগ’, প্রতিবেশীদের জন্য অশনি সঙ্কেত কালবৈশাখী ঝড়ে দৌলতদিয়া ঘাটের পন্টুন ছিঁড়ে পদ্মায় মাইক্রোবাস আন্দোলনের মুখে বাড়ল ঈদের ছুটি রাশিয়া-চীনের তৈরি বিপুল অস্ত্রের চালান জব্দ করল যুক্তরাষ্ট্র হটস্পট দক্ষিণ এশিয়া, ভারতের প্রতিবেশীদের জন্য অশনি সংকেত মমতার নতুন মন্ত্রিপরিষদে সংখ্যালঘু ৭ মুসলিম আফগানিস্তানে স্কুলে জঙ্গি হামলায় নিহত বেড়ে ৬৮, বেশিরভাগই স্কুলছাত্রী ভারতের যে রাজ্যে প্রতি দুজনের একজন করোনা পজিটিভ করোনায় বিপর্যস্ত ভারতে আরও ৪ হাজারের বেশি মৃত্যু সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটা নিয়ে এবার ‘আদালত অবমাননার’ অভিযোগ

হৃদস্পন্দন বন্ধের পরও অলৌকিক বাঁচা

অড্রে স্কুম্যান। ছবি: বিবিসি

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ৬ ঘণ্টা হৃদস্পন্দন বন্ধ থাকার পরও বেঁচে উঠেছেন এক নারী। চিকিৎসকরা এ ঘটনাকে ‘খুবই বিরল’ ও ‘বিস্ময়কর’ বলে উল্লেখ করেছেন। অলৌকিকভাবে বেঁচে ফেরা ওই নারীর নাম অড্রে স্কুম্যান। স্পেনের বার্সেলোনার এই বাসিন্দা সম্প্রতি স্বামীর সঙ্গে পাইরেনিস পার্বত্য এলাকায় বেড়ানোর সময় তুষার ঝড়ের কবলে পড়েন। এরপর মারাত্মক হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হন।

একপর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়ে গেলে স্কুম্যানের হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে যায়। এর দু’ঘণ্টা পর উদ্ধারকর্মীরা তাকে বার্সেলোনার একটি হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালের চিকিৎসক এডুয়ার্ড আরগুডো বলেন, পাহাড়ের প্রচণ্ড ঠাণ্ডার কারণে স্কুম্যান অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন, সেই ঠাণ্ডাই হয়তো তার জীবন বাঁচিয়েছে।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, হাসপাতালে আনার পর তাকে দেখে মনে হচ্ছিল মারা গেছেন। তবে তিনি যেহেতু হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত ছিলেন, তাই মনে হচ্ছিল বেঁচে ওঠার একটা সম্ভাবনা আছে। স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এত দীর্ঘ সময় হৃদযন্ত্র বন্ধ থাকলে তিনি মারা যেতেন। হাসপাতালে নেয়ার পর একটি বিশেষ মেশিন ব্যবহার করে স্কুম্যানের শরীরের রক্ত বের করে তাতে অক্সিজেন সঞ্চালন করা হয়। পরে আবার রক্ত শরীরে ফিরিয়ে দেয়া হয়। ডা. আরগুডো বলেন, স্কুম্যান যেভাবে সুস্থ হয়ে উঠলেন, সেটা অস্বাভাবিক ঘটনা। কারও হৃদযন্ত্র এত দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর আবার চালু হওয়ার ঘটনা আর নেই। বিবিসি বাংলা।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com