1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১১:৩৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তারা জন্ম নিয়েছিলেন একসঙ্গে, মৃত্যু হলো কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, ৩৩ বাংলাদেশি উদ্ধার নেত্রকোনায় বজ্রপাতে প্রাণ গেল সাতজনের সাংবাদিক রোজিনাকে হেনস্তার ঘটনা তদন্তে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কমিটি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ বন্ধুকে পাশাপাশি দাফন ভুল বিচারে ৩১ বছর জেলে দুই ভাই, ক্ষতিপূরণ সাড়ে ৭ কোটি ডলার! ‘ডকুমেন্টস সাংবাদিক রোজিনা নয়, সরকারি কর্মকর্তা উপস্থাপন করেছেন’ ফিলিস্তিন সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্রের শক্ত ভূমিকা চায় বাংলাদেশ জামিন পেলেন ফিরহাদ হাকিমসহ পশ্চিমবঙ্গের সেই ৪ নেতা ফিলিস্তিন ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধী অবস্থান চীনের

বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাস দুর্ঘটনা, নিহত ২

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: আর কিছুক্ষণ পরেই নববধূকে নিয়ে আসবে বরযাত্রী। আত্মীয়-স্বজনে ভরা বাড়ি। চলছিল আনন্দ উল্লাস। রাতে ফিরবে বরযাত্রী সেই অপেক্ষায় ছিলেন সবাই। কিন্তু সেই আনন্দঘন মূহুর্ত এক নিমিষেই বিষাদে পরিণত হলো। নববধূকে নিয়ে ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান দু’জন বরযাত্রী। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ছয়জন।

মঙ্গলবার রাতে ডোমার-দেবীগঞ্জ সড়কের পাগলাবাজার আমতলী এলাকায় ট্রাক্টর ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।
আহত সকলের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, জাহিদ হাসানের স্ত্রী রুনা বেগম (৩৫) ও পানিয়াল রহমানের স্ত্রী সকিনা খাতুন (৫০)। তারা দু’জনেই বর গোলাম রব্বানীর আত্মীয়। আহতরা হলেন, হামিদা বেগম (৪০), মজিদ ইসলাম (৩৫), জয়িতা আক্তার (১২), জান্নাত আক্তার (১০), লতিফা বেগম (২২)। সবার বাড়ি উপজেলার বোড়াগাড়ি ইউনিয়নের লালার খামার এলাকায়। রুনা বেগম ঘটনাস্থলে নিহত হলেও তার সঙ্গে থাকা ৫ বছরের শিশু সন্তানটি বেঁচে যান।

দুর্ঘটনায় আক্রান্তরা জানান, পার্শ¦বর্তী দেবীগঞ্জ উপজেলার তিস্তারহাট এলাকায় নফর উদ্দিনের ছেলে গোলাম রাব্বানীর বিয়ে শেষে রাতে নববধূ নিয়ে বরযাত্রীরা ৪টি মাইক্রোবাসে ডোমারের বাড়ির উদ্দেশ্যে ফিরছিলো। ফেরার পথে পাগলাবাজার আমতলী এলাকায় একটি ট্রাক্টরের সঙ্গে বরযাত্রীর গাড়ি বহরের একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুছড়ে পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই রুনা বেগম মারা যান।

দ্রুত এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা সাতজনকে উদ্ধার করে দেবীগঞ্জ স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ সময় সখিনা ও হামিদার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাতেই সখিনা বেগম মারা যান। আর হামিদা বেগমকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘাতক ট্রাক্টর চালক পালিয়ে যান। ডোমার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ফরহাদ হোসেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে আমরা চারজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। ঘটনাস্থলেই একজন মারা গেছেন।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com