1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
করোনা কেড়ে নিল আরেক চিকিৎসকের প্রাণ মৃদুভাষণ ডেস্ক :: করোনায় আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামে আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) চিকিৎসাধীন থেকে তিনি মারা যান। এ নিয়ে চট্টগ্রামে ১২ চিকিৎসক করোনায় মৃত্যুবরণ করলেন। মৃত ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। চমেকের উপপরিচালক ডা. আফতাবুল ইসলাম জানান, গত রোববার করোনা উপসর্গ নিয়ে চমেক হাসপাতালে ভর্তি হন ডা. মো. নজরুল ইসলাম। পরে তার নমুনা পরীক্ষা করা হলে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। কোভিড আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মারা যান। ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ২১তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। পিনাক-৬ ট্রাজেডির ছয় বছর পথচারীদের মারধরে টিকটক অপু গ্রেপ্তার করোনায় কুমিল্লার সাবেক এমপি এটিএম আলমগীরের মৃত্যু বন্ধ পাটকলগুলো পিপিপির আওতায় চালু হচ্ছে: মন্ত্রী রাত ১০টার পর বাইরে বের হওয়া নিষিদ্ধ ২৫ বছর পার বছর ব্যবধানে সঞ্চয়পত্রের বিক্রি কমেছে সাড়ে ৩৫ হাজার কোটি টাকা কঙ্গনাকে ভয় দেখাতে বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি নদীতে চামড়া ফেলে দিলেন ব্যবসায়ীরা

কিশোরগঞ্জের হাওর এলাকায় দুই পর্যটকের মৃত্যু

বিশাল পাথরবাহী বাক্লহেড স্টিল বডি নৌকা ভাড়া নিয়ে মোটরসাইকেলসহ হাওর ভ্রমণ করেছিল ২০০৮ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ফেসবুক গ্রুপের সদস্যরা। ছবি: সংগৃহিত

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: কিশোরগঞ্জের হাওর এলাকায় পৃথক ঘটনায় দুই পর্যটকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। জেলার নিকলী ও বাজিতপুর উপজেলার হাওর পর্যটন এলাকায় সাঁতার কাটতে গিয়ে এক পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে বাজিতপুরের হাওরে নৌ-দুর্ঘটনায় অপর এক পর্যটকের সলিল সমাধি হয়েছে।

স্থানীয় ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এদের মধ্যে নিকলীর বেড়িবাঁধ পর্যটন এলাকার হাওর থেকে মেহেদী হাসান (১৭) এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করতে সমর্থ হলেও বাজিতপুর হাওরে নৌ-দুর্ঘটনায় নিখোঁজ হাসান আহমেদ নামে পর্যটকের উদ্ধার কাজ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে।

শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নিকলী বেড়িবাঁধ পর্যটন এলাকায় এবং শুক্রবার রাত ১২টার দিকে বাজিতপুর উপজেলার পাটুলী ঘাট এলাকার হাওরে এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

নিকলী থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নরসিংদী জেলার বিভিন্ন এলাকার ভ্রমণ বিলাসী ১০ বাইকার তরুণ কিশোরগঞ্জের নিকলী বেড়িবাঁধ পর্যটন এলাকায় আসেন।

তাদের মধ্যে ৩ তরুণ টায়ারের টিউব নিয়ে জলকেলি করতে হাওরের ভাসান পানিতে ডুবে নিখোঁজ হন। স্থানীয় ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এদের মধ্যে দুইজনকে জীবিত উদ্ধার করতে সমর্থ হলেও দীর্ঘ দুই ঘণ্টা তল্লাশির পর মেহেদী হাসান নামের অপর তরুণকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার ধানুয়া গ্রামের অধিবাসী বলে জানিয়েছেন নিকলী থানার ওসি শামছুল আলম সিদ্দিকী।

এদিকে, ঢাকা,নরসিংদী, গাজীপুর ও সাভারসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ২০০৮ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে গড়ে ওঠা ফেসবুক গ্রুপের কয়েক শ’ সদস্য বাইকার মোটর সাইকেল নিয়ে শুক্রবার দুপুরে বাজিতপুর উপজেলার হুমাইপুর ইউনিয়নের পাটুলী ঘাটে আসেন। সেখান থেকে ইটনা, মিটামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলার হাওর পরিভ্রমণের জন্য একটি বিশাল পাথরবাহী বাক্লহেড স্টিল বডি নৌকা ভাড়া নিয়ে মোটরসাইকেলসহ ওঠেন।

তারা এসব হাওর উপজেলার বিস্তীর্ণ হাওরের ভাসান পানিতে নৌকা এবং মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরে বেড়িয়ে রাত ১২টার দিকে ওই নৌকাযোগেই ফিরে আসছিলেন।

পাটুলী ঘাটের কাছাকাছি আসলে তাদের বহনকারী বিশাল আকৃতির নৌকাটি বিদ্যুৎ তারের খঁটির সঙ্গে প্রচণ্ড গতিতে ধাক্কা খায়। এ সময় অনেক পর্যটক ও মোটরবাইক সিটকে গভীর পানিতে পড়ে যায়।

এ সময় অন্যান্য সকলে সাঁতরে তীরে উঠে আসলেও হাসান আহমেদ (৩২) নিখোঁজ থাকে। স্থানীয় লোকজনের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল গিয়ে স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে এবং আজ শনিবার বিকাল পর্যন্ত তার সন্ধান না পাওয়ায় উদ্ধার কাজ পরিত্যক্ত ঘোষণা করে।

ধারণা করা হচ্ছে, প্রচণ্ড স্রোতে ভেসে তার লাশ অনেক দূরে চলে গেছে।

নিখোঁজ হাসান আহমেদ লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার কুটাকিয়া গ্রামের নূরুল আমিনের ছেলে।

ঢাকার বড় মগবাজার এলাকায় তিনি বসবাস করতেন এবং নীলক্ষেত এলাকায় নিউ আইপি সেন্টার নামে হাসানের একটি গ্রাফিক্স ডিজানাইনিংয়ের প্রতিষ্ঠান রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাজিতপুর থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম।


করোনা কেড়ে নিল আরেক চিকিৎসকের প্রাণ মৃদুভাষণ ডেস্ক :: করোনায় আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামে আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) চিকিৎসাধীন থেকে তিনি মারা যান। এ নিয়ে চট্টগ্রামে ১২ চিকিৎসক করোনায় মৃত্যুবরণ করলেন। মৃত ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। চমেকের উপপরিচালক ডা. আফতাবুল ইসলাম জানান, গত রোববার করোনা উপসর্গ নিয়ে চমেক হাসপাতালে ভর্তি হন ডা. মো. নজরুল ইসলাম। পরে তার নমুনা পরীক্ষা করা হলে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। কোভিড আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মারা যান। ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ২১তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন।

করোনা কেড়ে নিল আরেক চিকিৎসকের প্রাণ মৃদুভাষণ ডেস্ক :: করোনায় আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামে আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) চিকিৎসাধীন থেকে তিনি মারা যান। এ নিয়ে চট্টগ্রামে ১২ চিকিৎসক করোনায় মৃত্যুবরণ করলেন। মৃত ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। চমেকের উপপরিচালক ডা. আফতাবুল ইসলাম জানান, গত রোববার করোনা উপসর্গ নিয়ে চমেক হাসপাতালে ভর্তি হন ডা. মো. নজরুল ইসলাম। পরে তার নমুনা পরীক্ষা করা হলে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। কোভিড আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মারা যান। ডা. মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ২১তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন।

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com