1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ১১:১৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তারা জন্ম নিয়েছিলেন একসঙ্গে, মৃত্যু হলো কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, ৩৩ বাংলাদেশি উদ্ধার নেত্রকোনায় বজ্রপাতে প্রাণ গেল সাতজনের সাংবাদিক রোজিনাকে হেনস্তার ঘটনা তদন্তে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কমিটি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ বন্ধুকে পাশাপাশি দাফন ভুল বিচারে ৩১ বছর জেলে দুই ভাই, ক্ষতিপূরণ সাড়ে ৭ কোটি ডলার! ‘ডকুমেন্টস সাংবাদিক রোজিনা নয়, সরকারি কর্মকর্তা উপস্থাপন করেছেন’ ফিলিস্তিন সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্রের শক্ত ভূমিকা চায় বাংলাদেশ জামিন পেলেন ফিরহাদ হাকিমসহ পশ্চিমবঙ্গের সেই ৪ নেতা ফিলিস্তিন ইস্যুতে নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধী অবস্থান চীনের

যুক্তরাষ্ট্রের শহরে রাতভর গুলি: নিহত ৪, আহত ১৮

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনসিনাটি শহরে এক রাতেই বিভিন্ন জায়গায় গুলিবর্ষণে অন্তত ৪ জন নিহত এবং ১৮ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয় প্রশাসন এই রাতকে ‘হিংস্র রাত’ বলে উল্লেখ করেছেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ও পুলিশের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।

খবরে বলা হয়েছে, সিনসিনাটি শহরে শনিবার গভীর রাত থেকে রবিবার ভোর পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের প্রাথমিক দাবি, প্রতিটি ঘটনাই বিচ্ছিন্ন৷ তবে কোনো বন্দুকবাজ এই হামলা চালিয়েছে, নাকি অন্য কোনো কারণে এতজন গুলিবিদ্ধ হলেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, শনিবার রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ প্রথম গুলি চালানোর খবর আসে অ্যাভোনডেল এলাকা থেকে৷ সেখানে ২১ বছর বয়সি অ্যান্টোনিও ব্লেয়ার নামে এক যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ৷ কিন্তু তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি৷ একই জায়গা থেকে গুলির আঘাত নিয়ে আহত অবস্থায় আরও তিনজনকে উদ্ধার করে পুলিশ৷

রাত ২টা ৩০ মিনিটে ফের একবার ওভার দ্য রাইন এলাকা থেকে গুলি চালানোর খবর আসে৷ সেখানে আহত হন ১০ জন৷ তাদের মধ্যে একজনের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়, আর একজন মারা যান হাসপাতালে৷ মৃত দুই যুবকের বয়স ৩৪ এবং ৩০ বছর৷

এর পাশাপাশি শহরের ওয়ালনাট হিলস এলাকাতেও গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে৷ এর পাশাপাশি পশ্চিম প্রান্ত থেকেও রবিবার ভোরে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে৷ সেখানেও একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে দাবি করা হচ্ছে৷

পুলিশ জানিয়েছে, প্রতিটি ঘটনাই এক থেকে দেড় ঘণ্টা অন্তর ঘটেছে৷ যদিও শহরের অ্যাসিস্ট্যান্ট পুলিশ কমিশনার পল নিউজিগেট দাবি করেছেন, প্রতিটি ঘটনাই বিচ্ছিন্ন এবং পরস্পরের সঙ্গে সম্পর্ক নেই বলেই তারা মনে করছেন৷ তবে কারা এই ঘটনার জন্য দায়ী সে বিষয়ে প্রাথমিকভাবে অন্ধকারে পুলিশ৷

শহরের মেয়র জন ক্র্যানলি স্বীকার করে নিয়েছেন, শহরের বাসিন্দাদের কাছে বন্দুক বা আগ্নেয়াস্ত্র রাখাটা অত্যন্ত সহজলভ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ করোনা মহামারির জন্য এখন বার বন্ধ৷ ফলে নিজেদের বাড়িতে বা ব্যক্তিগত জায়গাতেই পার্টি করার জন্য নিয়মিত জড়ো হচ্ছেন অনেকে৷ সেখানেই এই ধরনের হিংসাত্মক ঘটনা ঘটছে বলে অনুমান তার৷ ফলে আপাতত এই ধরনের পার্টিতে গিয়ে নিজেদের প্রাণ সংশয় না করার জন্য শহরবাসীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com