1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন

অবশেষে পদ ছাড়ছেন মইন উদ্দিন কলেজের অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন!

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: অবশেষে পদ ছাড়ছেন মইন উদ্দিন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন! জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সিলেট জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে বরাবর ওই কলেজের প্রভাষক মো. মাহবুবুর রউফ নয়নের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে অধ্যক্ষ পদ ছাড়তে নির্দেশনা প্রদান করা হয়

জানা গেছে- তেষট্টি বছর বয়সেও অধ্যক্ষ পদ আকড়ে ধরেছিলেন সিলেটের মইন উদ্দিন আদর্শ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো. গিয়াস উদ্দিন। শিক্ষামন্ত্রণালয় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল নীতিমালা অগ্রাহ্য করে নিজের ইচ্ছেমতো কলেজ পরিচালনা করে আসছিলেন তিনি।

এ বিষয়ে ওই কলেজের প্রভাষক মো. মাহবুবুর রউফ নয়ন গত ৭/৬/২০২০ তারিখে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সিলেট জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে গিয়াস উদ্দিনকে অধ্যক্ষ পদ ছাড়তে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এই আদেশের নিমিত্তে সৃষ্ট জটিলতার অবসান হতে যাচ্ছে ২১ অক্টোবর (বুধবার)। আগামীকাল বুধবার (২১ অক্টোবর) তাকে বাধ্যতামূলক ছাড়তে হচ্ছে অধ্যক্ষের চেয়ার।

অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিনের বয়স ৬০ বছর অতিবাহিত হওয়ার পর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি নিয়ে বাড়তি আরও দুই বছর দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। এই মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও গত ৭ মাসের অধিক সময় থেকে তিনি অধ্যক্ষ পদেই বহাল আছেন।

এদিকে, কলেজের কোনো শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী গত ৩ মাসের বেতন পাননি। অধ্যক্ষ নিয়োগের জটিলতায় বেতনভাতা পাচ্ছেন না কলেজের ভুক্তভোগী শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। এই ৩ মাস অতিবাহিত হলেও বেতনের ব্যাপারে কলেজ অধ্যক্ষের কোনো গরজ নেই। এতে তাদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

কলেজ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, নগরীর বাগবাড়ি এলাকায় ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় মঈন উদ্দিন আদর্শ মহিলা কলেজ। ২ বছর পর এই কলেজ এমপিওভুক্ত হয়।

কলেজের কয়েকজন সিনিয়র শিক্ষক জানান, ২০০৯ সালে কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব নেন মো. গিয়াস উদ্দিন। নিয়ম অনুযায়ী বেসরকারি কলেজে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত অধ্যক্ষ থাকা যায়। এ হিসাবে ২০১৮ সালের ১৪ মার্চ তার চাকরির বয়স পার করেছেন মো. গিয়াস উদ্দিন। এরপর অধ্যক্ষ পদে থাকার জন্য কলেজের গভর্নিং বডির কাছে আবেদন করেন তিনি। কলেজ গভর্নিং বডির সিদ্ধান্ত ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি নিয়ে আরও ২ বছর অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এই বর্ধিত সময়ের মেয়াদও শেষ হয়েছে চলতি বছরের ১৪ মার্চ। এরপরও তিনি ছাড়েননি অধ্যক্ষের চেয়ার।

এদিকে, নিয়ম বহির্ভুতভাবে মো. গিয়াস উদ্দিন অধ্যক্ষ পদ আকড়ে রাখায় গত ৩ মাস থেকে কলেজের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী বেতন-ভাতা পাননি। তবে সৃষ্ট জটিলতার অবসান ঘটতে যাচ্ছে বুধবার (২১ অক্টোবর)। আগামীকাল উপাধ্যক্ষ বা পরবর্তী জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অথবা জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে ৫ শিক্ষকের মধ্য থেকে যে কোনো একজনকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব হস্তান্তর করা হবে। এ সংক্রান্ত একটি অফিস আদেশ গত ১১ অক্টোবর প্রেরণ করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর ড. মো. মনিরুজ্জামান।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com