1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:০১ অপরাহ্ন

সাক্ষ্যগ্রহণেই পাঁচ বছর

শাহ এ এম এস কিবরিয়া । ফাইল ছবি

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যার বিচার কাজ ১৬ বছরেও সুরাহা হয়নি। ঘটনার তদন্ত করতেই কেটে যায় প্রায় ১০ বছর। তিন দফায় এ মামলার তদন্ত করে সিআইডি। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১২ নভেম্বর সিলেট রেঞ্জের সিনিয়র এএসপি মেহেরুন নেছা পারুল ৩২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। সেই থেকে বিচারকাজের অগ্রবতি বলতে ৪৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ।

সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি সরোয়ার আহমদ চৌধুরী আবদাল জানান, এ মামলায় মোট ১৭১ জন সাক্ষী। এর মধ্যে ৪৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। একই ঘটনায় দায়ের করা বিস্ফোরক আইনের মামলায়ও ২০২০ সালের ২২ অক্টোবর চার্জ গঠন করা হয়। আজ বুধবার উভয় মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ ধার্য রয়েছে। বিচারকাজের ধীরগতি প্রসঙ্গে পিপি সরোয়ার আহমদ জানান, মূল আসমিদের বিরুদ্ধে সারাদেশে জঙ্গি হামলা সংক্রান্ত মামলা রয়েছে। তাদের দেশের বিভিন্ন আদালতে হাজির করার জন্য এক কারাগার থেকে অন্য কারাগারে স্থানান্তর করতে হয়। তাই মামলার ধার্য তারিখে সব সময় আদালতে হাজির সম্ভব হয় না। এতে মামলার বিচার কাজ বিলম্বিত হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, এ মামলার আসামিদের মধ্যে তিনজনের ইতোমধ্যে অন্য মামলায় মৃত্যুদ- কার্যকর করা হয়েছে। এরা হচ্ছেÑ মুফতি আবদুল হান্নান, শরীফ সাহেদুল আলম ওরফে বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন রিপন। অন্যদিকে বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিস চৌধুরীসহ নয় আসামি পলাতক। এ ছাড়া সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফ চৌধুরী ও হবিগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র জিকে গৌছসহ জামিনে আছেন নয় আসামি।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ায়ি আওয়ামী লীগের এক জনসভা শেষে গ্রেনেড হামলায় কিবরিয়া ও তার ভাতিজা মঞ্জুরুল হুদাসহ পাঁচ নেতাকর্মী নিহত হন। এতে আহত হন হবিগঞ্জÑ৩ আসনের বর্তমান সাংসদ অ্যাডভোকেট আবু জাহিরসহ ৭০ জন। পরে ওই দিন রাতেই জেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমানে হবিগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খান সদর থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। আমাদের সময়


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com