1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫১ অপরাহ্ন

ঢাকা-তেল আবিব সম্পর্ক নিয়ে নানা জল্পনা

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বাংলাদেশ কি ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে চলেছে? কূটনৈতিক পাড়ায় এ নিয়ে বিস্তর জল্পনা-কল্পনা। অনেকে নানা হিসাব-নিকাশ মেলাচ্ছেন। কেউ কেউ বলছেন, যে দেশটির সঙ্গে পঞ্চাশ বছর ছিল বৈরী সম্পর্ক । এখনও কূটনৈতিক বিবৃতিতে স্পষ্ট। পাসপোর্টেও বলা ছিল, বাংলাদেশি নাগরিকরা পৃথিবীর যেকোনো দেশ সফর করতে পারবেন। তবে ইসরাইল সফর করতে পারবেন না। অতিসম্প্রতি সেই বাধা দূর হয়েছে। নতুন এই ই-পাসপোর্টে সে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে।
এ কারণেই ধারণা করা হচ্ছে, সম্ভবত ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক গড়ার নতুন কোনো ক্ষেত্র তৈরি করছে। মধ্যপ্রাচ্যের যেসব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে তারা ইতিমধ্যেই ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করেছে। এরমধ্যে সংযুক্ত আরব- আমিরাত অন্যতম। ধারণা করা হচ্ছে, আরব-ইসরাইল সম্পর্কে নতুন মোড় নেয়ায় বাংলাদেশ এ পথেই হাঁটছে। সামগ্রিক বিষয়ের ওপর দৃষ্টি রেখেছেন আমাদের প্রতিনিধি তারিক চয়ন। তিনি বলছেন-

বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীদের বিশ্বের একটি মাত্র দেশেই যাওয়া নিষেধ, সেটি হলো ইসরাইল। কারণ বাংলাদেশি পাসপোর্টে স্পষ্ট করে ইংরেজী বোল্ড হরফে লেখা আছেঃ ‘THIS PASSPORT IS VALID FOR ALL COUNTRIES OF THE WORLD EXCEPT ISRAEL’ যার বাংলা অর্থ- এই পাসপোর্টটি ইসরাইল ব্যতীত বিশ্বের সকল দেশের জন্য বৈধ।

এতোদিন ধরে এটাই জানতো সবাই। কিন্তু এখন সরবরাহ করা বাংলাদেশি পাসপোর্টে আর ‘EXCEPT ISRAEL’ শব্দ দুটি নেই। এখন লেখা আছেঃ ‘THIS PASSPORT IS VALID FOR ALL COUNTRIES OF THE WORLD’ যার বাংলা অর্থ- এই পাসপোর্টটি বিশ্বের সকল দেশের জন্য বৈধ।

জানা গেছে, স্বাধীনতার পর থেকেই বাংলাদেশের ইস্যুকৃত পাসপোর্টের প্রথম পৃষ্ঠায় লেখা ছিলঃ ‘THIS PASSPORT IS VALID FOR ALL COUNTRIES OF THE WORLD EXCEPT ISRAEL’। ফিলিস্তিন ইস্যুতে শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বের বহু মুসলিম দেশের সঙ্গেই সম্পর্ক নেই ইসরাইলের। তবে পাসপোর্টে এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা লিখে রাখা দেশ ছিল শুধু বাংলাদেশই।

পেছনে তাকালে দেখা যায়, ১৯৭১ সালে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশকে একেবারে শুরুর দিকে যে কয়েকটি দেশ স্বীকৃতি দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল, তাদের মধ্যে অন্যতম ছিল ইসরাইল। ১৯৭২ সালের ৪ঠা ফেব্রুয়ারি ইসরাইল বাংলাদেশকে ওই প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন সরকার লিখিতভাবে ইসরাইলের ওই স্বীকৃতি প্রত্যাখ্যান করেছিল। তৎকালীন সরকারের ওই দৃঢ় অবস্থানের পেছনে মূল কারণ ছিল ফিলিস্তিনিদের স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের সমর্থন। এরপর ৫০ বছর পেরিয়ে গেছে, পদ্মা-মেঘনায় অনেক জল গড়িয়েছে, অনেক সরকার গিয়েছে-এসেছে কিন্তু ইসরাইল প্রশ্নে বাংলাদেশের সেই অবস্থানে কোন পরিবর্তন হয়নি। যেমন পরিবর্তন হয়নি পাসপোর্টে ওই লেখাটির ক্ষেত্রেও।

তবে, ৫০ বছর পর এখন নতুন ইস্যু করা ও মেয়াদোত্তীর্ণ পাসপোর্ট নবায়নের ক্ষেত্রে ওই নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ার বিষয়টি দেখা যাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে পাসপোর্ট গ্রহণকারী বেশ কয়েকজন মানবজমিনকে জানান, গত ঈদুল ফিতরের পর থেকে ইস্যু করা নতুন ই-পাসপোর্টে লেখা রয়েছে ‘THIS PASSPORT IS VALID FOR ALL COUNTRIES OF THE WORLD’। অর্থাৎ ‘EXCEPT ISRAEL’ শব্দ দুটি এখন আর পাসপোর্টে লেখা নেই। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে আলোচনা-সমালোচনা। কারণ মার্চেও পাসপোর্ট গ্রহণ করা অনেকে জানিয়েছেন, তাদের পাসপোর্টে ওই শব্দ দুটি রয়েছে।

পাসপোর্ট ইস্যু করা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিষয় মন্তব্য করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘শব্দ দুটি (EXCEPT ISRAEL) কেন তুলে দেয়া হলো এ বিষয়ে তারাই ভালো বলতে পারবে।’ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। সংবাদমাধ্যমকে তিনি অবশ্য এটাও জানিয়েছেন, দেশটির সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আগে যেরকম ছিল এখনও সেরকমই থাকবে।

সে যাই হোক, ওয়াকিবহাল কূটনীতিকরা বলছেন, ওই শব্দ দুটি তথা ওই নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ায় এখন কার্যত বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে কারো ইসরাইল ভ্রমণ করায় কোন বাধা থাকলো না। বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়েই এখন ইসরাইল ভ্রমণ করা যাবে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com