1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৩:১৬ অপরাহ্ন

চৌর্যবৃত্তি গুগল স্কলারের লাল তালিকায় বেরোবি শিক্ষক

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অন্যের আর্টিকেল নিজের নামে চালানোর অভিযোগ ওঠেছে। এ কারণে ওই শিক্ষককে লাল তালিকাভুক্ত (রেডলিস্টে) করেছে গবেষণা সংশ্লিষ্ট একটি আন্তর্জাতিক সাইট।

এ ঘটনায় সমালোচনার ঝড় ওঠেছে। এ নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম রশিদুল ইসলাম। তিনি পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও শহীদ মুখতার ইলাহী হলের প্রভোস্ট।

জানা যায়, ড. রশিদুল ইসলাম বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেরিফাইড ই-মেইল আইডি দিয়ে তার নিজের নামে গুগল স্কলারে একটি প্রোফাইল তৈরি করেন। সেখানে তিনি বিভিন্ন দেশের গবেষকদের লেখা আর্টিকেলগুলো যুক্ত করেন।

ফলে তার প্রোফাইলের সাইটেশন (তথ্য স্বীকৃতি) বহুগুণে বেড়ে যায়। এই সাইটেশনের ভিত্তিতে ‘ওয়ার্ল্ড সাইন্টিস্ট অ্যান্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং-২০২১’-এ বাংলাদেশের সেরা গবেষকদের একজন নির্বাচিত হন তিনি।

এ নিয়ে রশিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে ওই তালিকা থেকে সরিয়ে তাকে রেডলিস্টভুক্ত করে সাইটটি। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা শুরু হলে প্রথমে তিনি নিজের প্রোফাইল থেকে অন্যের লেখা আর্টিকেলগুলো সরিয়ে নেন। তখন তার প্রোফাইলে সাইটেশন সংখ্যা দাঁড়ায় মাত্র ৩।

পরে আবার চেক করে দেখা যায়, তিনি গুগল স্কলার থেকে প্রোফাইলটি ডিলিট করে দেন। এ নিয়ে মুখ খুলেছেন অনেকেই। অনেকেই শিক্ষক রশিদুল ইসলামের শাস্তির দাবি করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ড. রশিদুল ইসলাম বলেন, ‘গুগল সাইটে অ্যাকাউন্ট খুলে ওটাতে আমি আর ঢুকিনি। অটোমেটিক কিছু আর্টিকেল ওটাতে এসেছিল। ওখানে যেগুলো আমার সেগুলো সিলেক্ট করতে হয় আর বাকিগুলোকে রিমুভ করতে হয়। আমি সেটা করেছি। আর যেগুলো ছিল সেগুলো আমার ছিল না। একটা অ্যাকাউন্ট খুললেই ওই রিলেটেড অনেক কিছু আসে। সেগুলো সিলেক্ট করতে হয়। এখানে হয়তো কোনো সমস্যা হয়েছে।’

তাকে কেন লাল তালিকাভুক্ত করা হলো-জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়টি দেখিনি। আমি আমারগুলো সিলেক্ট করেছি। তারপরে কি হয়েছে আমি জানি না।’

এ ব্যাপারে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হাসিবুর রশিদ বলেন, এ বিষয়ে এখনো অবগত নই। তাই কোনো মন্তব্য করতে পারছি না।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com