1. ahmedshuvo@gmail.com : admi2018 :
  2. mridubhashan@gmail.com : Mridubhashan .Com : Mridubhashan .Com

সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:২২ অপরাহ্ন

‘আমিও টাকার অভাবে ঢাবিতে ভর্তি হতে পারিনি’

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: সেই দিনমজুর নাজমুলকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য ২০ হাজার টাকা সাহায্য করেছেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভির আরাফাত পিপিএম। সূত্র: বাংলাদেশ পুলিশ ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজ

গত ১ অক্টোবর বেলা ১১টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তিনি নাজমুলের হাতে এ অর্থ তুলে দেন।

‘আমিও অর্থাভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারিনি। তাই অর্থাভাবে কোনো মেধাবী শিক্ষার্থী ঢাবিতে ভর্তি হতে পারবে না, এটি কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।’

অর্থাভাবে মেধাবী ছাত্র নাজমুলের ঢাবিতে ভর্তি হতে না পারার বেদনায় এভাবেই স্মৃতিচারণ করলেন এসপি।

নগদ অর্থ সহায়তার পাশাপাশি নাজমুল যাতে পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারে তার সব ব্যবস্থা করবেন বলে নাজমুলের পরিবারকে আশ্বস্ত করেছেন এসপি তানভির।

প্রসঙ্গত টিউশনি ও দিনমজুরের কাজ করে সংসারের ঘানি টেনেও কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার হালসা ডিগ্রি কলেজ থেকে মানবিক বিভাগে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে অদম্য মেধাবী ছাত্র নাজমুল।

দেশের সবোর্চ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ডানা মেলতে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছিলেন তিনি।

ঢাবিতে সুযোগ পেতে অন্যান্য শিক্ষার্থীর মতো অভাবের কারণে নাজমুল কোচিং করার সুযোগ পায়নি।

টিউশনির পাশাপাশি বাড়িতে পড়াশোনা করে টাকা জোগাড় করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয় তাকে।

সেখানে অনার্স ১ম বর্ষ ‘খ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ৪৭৬তম অবস্থান নিয়ে তিনি উত্তীর্ণও হয়েছেন। কিন্তু দিনমজুর নাজমুলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া তো দুরের কথা লেখাপড়ার খরচই ঠিকমতো চালানোয় অসমর্থ ছিল।

গত রোববার এ মানবিক বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ কিছু গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর কুষ্টিয়া জেলার পুলিশ সুপার এসএম তানভির আরাফাত পিপিএমের নজরে আসে।

তিনি বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে নাজমুলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

গত ১ অক্টোবর হালসা ডিগ্রি কলেজ শিক্ষক ইমাজউদ্দিন, বাবা আজিজ হোসেন, মা নাসিমা খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়া কার্যালয়ে আসেন নাজমুল।

নাজমুল ও তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন এসপি। তাৎক্ষণিকভাবে নাজমুলকে সাহায্য করেন তিনি।

উল্লেখ্য, নাজমুলকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পর বেশ কয়েকজন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান তাকে আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

কুষ্টিয়ার মৌবন সুইটস নামে একটি প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর থেকে যতদিন পড়ালেখা শেষ না হবে, ততদিন পর্যন্ত নাজমুলকে মাসিক ২ হাজার ৫০০ টাকা করে সহায়তা প্রদান করার ঘোষণা দিয়েছে।

প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক সাবিনা আঞ্জুম জনি রোববার নাজমুলের উপস্থিতিতে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে এ ঘোষণা দেন।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com